1. admin@purbobangla.net : purbobangla :
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সিএমপি’র নতুন কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় নলছিটিতে প্রাইভেটকারে ইয়াবা ও গাঁজাসহ আটক-২ বীণারানী দে’র শোক সভায় বক্তারা মানুষের কল্যাণ সাধনের মাঝে জীবনের মহত্ব চট্টগ্রাম বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ব্যবসায়ী গ্রুপের নির্বাচনের প্রার্থী পরিচিতি অনুষ্ঠান বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার সোসাইটির উদ্যোগে সিলেটের বন্যা দুর্গত ৭ শতাধিক পরিবারে ত্রাণ বিতরণ দুর্নীতিঃ চাকরি গেলো ডিএসসিসির কর কর্মকর্তাসহ ৩৪ জনের ‘লিগ্যাল এইড দরিদ্র বিচার প্রার্থীর শেষ আশ্রয়স্থল’ বাংলাদেশ ফাইন্যান্সের অগ্নি নির্বাপণ জরুরী উদ্ধার ও বহির্গমন বিষয়ক প্রশিক্ষণ ও মহড়া অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে ৬৮০পিচ ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নবাবগঞ্জে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভা

৪ দিন ব্যাপী ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন চলছে চট্টগ্রামে

পূর্ব বাংলা ডেস্ক
  • প্রকাশিত সময়ঃ বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০২২
  • ২৬ বার পড়া হয়েছে

চট্টগ্রামে ৪ দিন ব্যাপী ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপন করা হবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বাস্তবায়নে  ১২ থেকে ১৫ জুন ৪১ টি ওয়ার্ডে ১২৮৮টি স্থায়ী ও অস্থায়ী কেন্দ্রে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপন করা হবে। ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৮১,০০০ জন শিশুকে ১টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (১লক্ষ ইউনিট) এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী প্রায় ৪ লক্ষ ৫৫ হাজার শিশুকে ১টি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (২ লক্ষ ইউনিট) খাওয়ানো হবে এবং শিশুকে ৬ মাস।বয়স পর্যন্ত শুধুমাত্র মায়ের দুধ খাওয়ানো বিষয়ে পুষ্টি বার্তা প্রচার করা হবে। প্রতিটি এলাকায় সকাল ৮ থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতীহীনভাবে শিশুদেরকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

                                                 চসিক প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: সেলিম আকতার চৌধুরীর লিখিত বক্তব্য
বিগত ২ বছরের অধিক সময়ে কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবে সারা বিশ্ব তথা বাংলাদেশের মানুষ যখন আতংকিত ছিল, ঠিক সেই সময়ে আপনারা সাংবাদিকগণ জাতীর পাশে থেকে বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের মাধ্যমে জনগণকে সচেতন করে গেছেন, যা অত্যন্ত প্রশংসার যোগ্য। এজন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন স্বাস্থ্য বিভাগ আপনাদেরকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাচ্ছে। আপনারা শত ব্যস্ততার মধ্যেও এ ধরনের সরকারী জাতীয় কর্মসূচীতে সাড়া দিয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হবার জন্যে আপনাদের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আপনারা নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জাতীয় পুষ্টি সেবা জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান মহাখালী ঢাকা-১২১২ এর সার্বিক সহযোগিতায় সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ১২ই জুন হতে ০৪ দিন ব্যাপী জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২ইং কোভিড-১৯ মহামারির প্রেক্ষাপটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিম্নবর্ণিত সেবা ও কার্যক্রম পালন করে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

নির্দেশনাসমূহ

১) কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সংক্রমণ যদিও বা নিম্নমুখী তারপরও কোভিত-১৯ রোগ প্রতিরোধ করার জন্য স্বাস্থ্যকর্মী স্বেচ্ছাসেবীগণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাইড লাইন অনুসরন করে কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াবেন।

২) ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে সমূহে (ইপিআই কেন্দ্র, কমিউনিটি ক্লিনিক ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র) স্বাস্থ্যবিধি মেনে (মুখে মাক্স পড়া, সাবানও পানি দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে ভালভাবে বার বার দুই হাত ধৌত করা/ হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে বার বার হাত পরিষ্কার করা) শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে।
৩) কোভিড-১৯ এর সংক্রমন হতে প্রতিরোধ করার স্বার্থে কেন্দ্রসমূহে সামাজিক নিরাপত্তা

বিষয়ক সতর্কতা (ভিড় নিয়ন্ত্রণ ও শারীরিক দুরত্ব নিশ্চিতকরণ (কমপক্ষে ৩ ফুট দুরত্ব) মেনে চলা।

৪) ৬ মাস থেকে ১১ মাস প্রতিটি শিশুকে ১টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

(১ লক্ষ আই,ইউ) খাওয়ানো হবে।

(৫) ১২-৫৯ মাস বয়সী প্রতিটি শিশুকে ১টি করে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (২

লক্ষ আই,ইউ) খাওয়ানো হবে।

৬) জন্মের পরপর (১ ঘন্টার মধ্যে) শিশুকে শালদুধ খাওয়ানোসহ প্রথম ৬ মাস শিশুকে শুধুমাত্র মায়ের দুধ খাওয়ানোর বিষয়ে পুষ্টি বার্তা প্রচার করা। ৭) শিশুর বয়স ৬ মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি ঘরে তৈরি পরিমাণমতো সুষম খাবার খাওয়ানো বিষয়ে পুষ্টি বার্তা প্রচার করা।

৮) সম্ভাব্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া অবলোকন ও তাৎক্ষণিক চিকিৎসা প্রদানের লক্ষ্যে মনিটরিং টিম গঠন করা। ৯) সঠিকভাবে আইপিসি সম্পন্ন করা এবং ওয়ার্ড ভিত্তিক উদ্দিষ্ট শিশুর তালিকা সংরক্ষণ

করা। ১০) স্বেচ্ছাসেবী প্রশিক্ষণ সঠিকভাবে সম্পন্ন করা এবং ওয়ার্ডভিত্তিক মাইকিং জোরদার করা।

১১) নির্ধারিত ইপিআই কার্যক্রম ব্যাহত না করে মাইক্রোপ্ল্যানিং করে ১২ই জুন থেকে ০৪ দিন শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তাছাড়া চসিক পরিচালিত দাতব্য চিকিৎসালয়, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও অন্যান্য সরকারী স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

(১২) ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে যে সকল শিশু ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়া থেকে বাদ যাবে তাদের পরবর্তীতে চসিক পরিচালিত দাতব্য চিকিৎসালয়, নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র, সরকারী, বেসরকারী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মাতৃসদন হাসপাতালে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে পারবে।

ক) চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় উক্ত জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন অত্যন্ত সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ৪ (চার) দিনব্যাপী নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে ১২৮৮টি স্থায়ী/অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র থেকে ০৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী প্রায়
৮১,০০০ শিশুকে ১টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (১লক্ষ ইউনিট) এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী প্রায় ৪ লক্ষ ৫৫ হাজার শিশুকে ১টি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (২লক্ষ ইউনিট) খাওয়ানো হবে এবং শিশুকে ৬ মাস বয়স পর্যন্ত শুধুমাত্র মায়ের দুধ খাওয়ানো বিষয়ে পুষ্টি বার্তা প্রচার করা হবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় উক্ত জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন

অত্যন্ত সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সকাল ৮:০০ ঘটিকা হতে বিকাল ৪.০০ ঘটিকা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে এ কর্মসূচী চলবে।

ংঃ) উক্ত ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০১২ইং সফলভাবে বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সকল সরকারী/বে-সরকারী সংস্থার কর্মকর্তাগণ, সকল জোনাল মেডিকেল অফিসার, মেডিকেল অফিসার, ইপিআই টেকনিশিয়ান, সুপারভাইজার, স্বাস্থ্য সহকারী, টিকাদান ও স্বাস্থ্য কর্মী এ কাজে নিয়োজিত থাকবেন। উক্ত জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সমাজের সর্বস্তরের সচেতন নাগরিক তথা বুদ্ধিজীবি, সাংবাদিক, শিক্ষক, প্রকৌশলী, ইমাম ও অন্যান্য পেশাজীবিদেরকে সর্বাত্মকভাবে অংশগ্রহণ অবশ্যই কাম্য। আপনাদের সকলের সর্বাত্মক সহযোগীতা ছাড়া সিটি কর্পোরেশনের একার পক্ষে এ লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভবপর নয়। উল্লেখ্য যে, গত ১১-১৪ই ডিসেম্বর ২০২১ইং অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন কার্যক্রমে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৬-১১ মাস বয়সী ৭৬,৬৫৯ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৪, ৪২, ১৯৬ জন শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে। যার অর্জীত লক্ষ্য মাত্রা ছিল শতকরা ৯৩.৮৫% ও ৯৮.৭৭%।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (১২-১৫ই জুন জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২ উদযাপন উপলক্ষ্যে) গৃহীত বিশেষ কার্যক্রম সমূহঃ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সুন্দর ও সুষ্টভাবে পরিচালনার জন্য নিম্নলিখিত কার্যক্রমগুলো হাতে নেয়া হয়েছে :

ক) সিটি কর্পোরেশনের এনজিও কর্মকর্তা, সরকারী ও আধা সরকারী কর্মকর্তা, চিকিৎসক, সাংবাদিক শিক্ষক ও অন্যান্য প্রতিনিধিদের নিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে এ্যাডভোকেসি সভা, ওয়ার্ড পর্যায়ে এ্যাডভোকেসি সভা ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়েছে।
সিটি কর্পোরেশন এলাকায়জন জনগনকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য মেয়র মহোদয় এর পক্ষ হতে “বিশেষ বিজ্ঞন্তি” সহকারে জাতীয়/স্থানীয় পত্রিকায় প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ক্যাম্পেইনে জনসাধারণের পূর্ণ সহযোগীতার আহবান জানিয়ে সকল মসজিদে জুমার নামাজের আগে এবং পরে মুসল্লিগণকে অবহিত করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রতি ওয়ার্ডে ০১ (এক) দিন ব্যাপী মাইকিং করা হবে। একজন সচেতন সাংবাদিক হিসেবে আপনার কাছে জাতি প্রত্যাশা করে।

যেহুতু এখনো কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব রয়েছে সেহেতু সকল স্বাস্থ্য বিধি মেনে শিশুদেরকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যে ইতিবাচক এবং তথ্য নির্ভর প্রতিবেদন প্রকাশ করে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সম্পর্কে জনগণের আগ্রহ সৃষ্টি এবং অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা।

ভিটামিন ‘এ’ এর গুরুত্ব সম্পর্কে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করে অভিভাবকদের সচেতন করা।

প্রতিটি শিশুর ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ার অধিকার আছে। নিজ সন্তান ছাড়াও বাড়িতে বসবাসকারী উদ্দিষ্ট সকল শিশু যাতে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল পায় এই ব্যাপারে সবাইকে সচেতন করা।

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর পর কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কারণে জনগণ

যেন ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর উপর আস্থা না হারায় সে ব্যাপারে

আপনার দৃঢ় ভূমিকা রাখা।

যে কোন সুচিন্তিত মতামত, পরামর্শ ও কোন বিষয়ে জানার থাকলে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট অবহিত করা।

আপনাদের সবার আন্তরিক প্রচেষ্টায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন অতীতে যে সুনাম অর্জন হয়েছে আসন্ন জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সাফল্যের সাথে সম্পন্ন করে এই ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখবে বলে আশা ব্যক্ত করছি।

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন সফলভাবে বাস্তবায়নে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ইপিআই সদর দপ্তর, জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান ও জাতীয় পুষ্টি সেবা, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) চট্টগ্রাম, সিভিল সার্জন অফিস চট্টগ্রাম, ইউনিসেফ সহ সকল সরকারী/বে-সরকারী সংস্থা কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আসুন একজন সচেতন অভিভাবক হিসেবে ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের ১টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (১লক্ষ ইউনিট) এবং ১২ ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১টি করে লাল উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল (২লক্ষ ইউনিট) খাওয়ানোর মাধ্যমে অপুষ্টি ও মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করি।

 

শেয়ার করুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 purbobangla